1. ajkerfaridpur2020@gmail.com : Monirul Islam Titu : Monirul Islam Titu
  2. jmitsolution24@gmail.com : support :
  3. titunews@gmail.com : Monirul Islam Titu : Monirul Islam Titu
পুলিশকে কুপিয়ে দিলো হত্যা মামলার আসামী - আজকের ফরিদপুর
শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২, ০৫:২০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ বোর্ড :
আজকের ফরিদপুর নিউজ পোর্টালে আপনাদের স্বাগতম । করোনার এই মহামারীকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। সচেতনে সুস্থ থাকুন।

পুলিশকে কুপিয়ে দিলো হত্যা মামলার আসামী

  • Update Time : বুধবার, ১০ আগস্ট, ২০২২
  • ১৬৮ জন পঠিত
বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:
ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে হত্যা মামলা ও আদার সেকশন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামি সুমন মিয়াকে (৪০) ধরতে গিয়ে বোয়ালমারী থানার এসআই মামুনুল ইসলাম ও আসামি আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। সুমন মিয়ার বাড়ি পৌর সভার কামার গ্রাম এলাকায়।
জানা যায়, সুমন মিয়ার নামে নগরকান্দা থানার একটি হত্যা মামলায় ও গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থানায় আদার সেকশন মামলায় ওয়ারেন্ট রয়েছে। সে দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) রাত সাড়ে ৭ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পৌরসভার ওয়াবদার মোড় পানি উন্নয়ন বোর্ডের অফিস এলাকায় এসআই মামুনুল ইসলাম তাকে ধরতে যায়। এ সময় আসামি ও পুলিশের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। ধস্তাধস্তির সময় আসামির ছুরির কোপে পুলিশ আহত হয়। এ সময় আসামিও আহত হয়। পরে খবর পেয়ে থানা থেকে আরো পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
এসআই মামুনুল ইসলাম বলেন, যখন আসামিকে ধরতে গেছি তখন আসামি আমাকে ছুরি দিয়ে অনেকগুলো কোপ দেয়। একটা কোপ আমার মুখে লাগে। আমি আহত হয়েছি। তিনি আরো বলেন,  যখন ধরতে গেছি আসামি আমার মুখ লক্ষ্য করে একাধিক কোপ দেয়। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে মামলা করবো।
থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আব্দুল ওহাব বলেন, ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামি সুমন মিয়াকে ধরতে গিয়ে ধস্তাধস্তিরর সময় আসামির ছুরির কোপে মামুনুল ইসলাম আহত হয়। এ ছাড়াও আসামিও আহত হয়েছে। তাদের দুজনকেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আসামি সুস্থ হলে আদালতে পাঠানো হবে। আসামি নিয়মিত নেশা করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© পদ্মা বাংলা মিডিয়া হাউজের একটি প্রতিষ্ঠান
Design & Developed By JM IT SOLUTION