1. ajkerfaridpur2020@gmail.com : Monirul Islam Titu : Monirul Islam Titu
  2. jmitsolution24@gmail.com : support :
  3. titunews@gmail.com : Monirul Islam Titu : Monirul Islam Titu
সালথায় নির্বাচনে হেরে নৌকার সমর্থকদের বাড়িতে হামলার অভিযোগ
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশ বোর্ড :
আজকের ফরিদপুর নিউজ পোর্টালে আপনাদের স্বাগতম । করোনার এই মহামারীকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। সচেতনে সুস্থ থাকুন।
শিরোনাম :

সালথায় নির্বাচনে হেরে নৌকার সমর্থকদের বাড়িতে হামলার অভিযোগ

  • Update Time : শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১৯১ জন পঠিত
সালথায় নির্বাচনে হেরে নৌকার সমর্থকদের বাড়িতে হামলার অভিযোগ
সালথায় নির্বাচনে হেরে নৌকার সমর্থকদের বাড়িতে হামলার অভিযোগ

মনির মোল্যা, সালথা : ফরিদপুরের সালথায় ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে হেরে গিয়ে নৌকার সমর্থকদের উপর ও তাদের বসতবাড়িতে একের পর এক হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে বিদ্রোহী প্রার্থী মো. খোরশেদ খান এবং তার সমর্থকদের বিরুদ্ধে। উপজেলার গট্টি ইউনিয়নে এসব হামলার ঘটনা ঘটছে। নির্বাচনের পর থেকে ইউনিয়নের প্রায় প্রতিটি গ্রামে সহিংসতার ঘটনা ঘটে চলেছে। এসব সহিংসতায় প্রকাশ্যে নেতৃত্ব ও উস্কানি দিচ্ছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এই খোরশেদ খান।

(২০ জান্য়ুারি ২০২৩) শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, সবশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় কোনো কারণ ছাড়াই ইউনিয়নের দরগা গট্টি গ্রামে নৌকার সমর্থক সেলিম তালুকদার ও নুরু তালুকদারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় খোরশেদের সমর্থকরা। একই সময় বাগাট গট্টি গ্রামের রুস্তম মোল্যা ও মিন্টু মোল্যাসহ কয়েক জনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়। খোরশেদের বাড়ি পাশ^বর্তী আগুলদিয়া গ্রামে। ওই গ্রাম থেকে খোরশেদের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে দগরা গট্টি গ্রামে এসে এ হামলা চালায়।

এরআগে বুধবার (১৮ জানুয়ারি) মেম্বার গট্টি গ্রামে খোরশেদের পক্ষের নেতা রফিক মাতুব্বরের সমর্থকরা রকন মাতুব্বরের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ ছাড়া কয়েক মাস আগে আগুলদিয়া গ্রাম থেকে খোরশেদের সমর্থকরা জোট বেধে পাশের মোড়হাট ও জয়ঝাপ গ্রামে গিয়ে কয়েকবার হামলা চালিয়েছে। এসব ঘটনায় একাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। অনেকে হারিয়েছেন বাড়িঘর। এত কিছুর পরেও খোরশেদের বিরুদ্ধে দৃশ্যমান কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ভুক্তভোগী দরগা গট্টি গ্রামে নুরু তালুকদার ও সেলিম তালুকদার বলেন, গত ইউপি নির্বাচনে যারা নৌকায় ভোট দিয়েছে বেছে বেছে তাদের বাড়িতে একের পর এক হামলা চালাচ্ছে খোরশেদ খান ও তার সমর্থকরা।

গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার কোনো কারণ ছাড়াই আগুলদিয়া গ্রাম থেকে আমাদের গ্রামে এসে আমাদের কয়েকজনের বাড়িতে ব্যাপক হামলা চালিয়ে বসতঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে। তারা আরো বলেন, নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর থেকে পাগল হয়ে গেছে খোরশেদ। প্রতিটি গ্রামে ইন্ধন দিয়ে সহিংসতা সৃষ্টি করছে। খোরশেদের বাড়ি আগুলদিয়া গ্রামে। অথচ ওই গ্রাম থেকে দলবেধে প্রতিটি গ্রামে গিয়ে হামলা চালিয়ে আসছে। খোরশেদের অত্যাচারে-নির্যাতনের ভয়ে আমরা বাড়িতে ঠিকমত ঘুমাতে পারছি না। মনে হচ্ছে নৌকায় ভোট দিয়ে আমরা পাপ করেছি।

গট্টি ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লাবলু বলেন, আমি দলপক্ষ করি না। তারপরেও নৌকার সমর্থকদের অত্যাচার-নির্যাতন করছে বিদ্রোহী প্রার্থী খোরশেদ খান। আমি বিষয়টি প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি। অভিযুক্ত খোরশেদ খান সব অভিযোগ অস্বীকার বলেন, আমি বাড়িতে ছিলাম না। জানতে পারলাম বিভিন্ন এলাকার লোকজন এবং স্থানীয়রা ৩টার সময় আজিজ মোল্যার নেতৃত্বে ২০-৩০ জন প্রথমে ছালাম ও কুটি মিয়াসহ আমার সমর্থকদের কয়েকজনের বাড়িতে হামলা চালায়। পরে ওরা পাল্টা হামলা চালালে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। আমি জানতে পেরে বিট অফিসারকে বিষয়টি জানাই।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শেখ সাদিক বলেন, গট্টি ইউনিয়নে স্থানীয় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে খোরশেদ খান উস্কানি দিয়ে সহিংসতা সৃষ্টি করে আসছে। পুলিশ তাকে ধরার জন্য চেষ্টা করছে। তাছাড়া খোরশেদের সাথে ইব্রাহিম, দেলোয়ার খা, খবির, পাভেল, জাহিদ ও সাহিন গট্টি ইউনিয়নে উস্কানি দিয়ে সংঘর্ষ বাঁধাচ্ছে বলে জানতে পেরেছি। এদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। উল্লখ্যে, ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী হাবিবুর রহমান লাবলুর কাছে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন বিদ্রোহী প্রার্থী মো. খোরশেদ খান। এরপর থেকেই ইউনিয়নে শুরু হয় বিশৃঙ্খলা ও সহিংসতা।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© পদ্মা বাংলা মিডিয়া হাউজের একটি প্রতিষ্ঠান
Design & Developed By JM IT SOLUTION